বিএনপি এখন রিজভী নির্ভর: শীর্ষ নেতাদের দেখা মিলছে না

1

হুমকি-ধামকির পর বিরোধী জোটের ৪৮ ঘণ্টার অবরোধের প্রথম দিনেই মাঠছাড়া জোটের শীর্ষ নেতারা। এ কারণে ঢাকার আন্দোলন গতিহীন হয়ে পড়েছে। এর আগে তিনদফার শতাধিক ঘণ্টার হরতালেও বিএনপির শীর্ষ নেতারা ছিলেন অনুপস্থিত। সে সময় একমাত্র দলের মুখপাত্রের দায়িত্ব পালন করেন বিএনপি কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের ‘আবাসিক’ নেতা যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। এবারে রাজপথ, রেলপথ ও নৌপথ অবরোধের প্রথম দিনে বিএনপির কঠোর আন্দোলন গতি হারায়।

এর আগের লাগাতার হরতাল পালনকালে শীর্ষ নেতারা ছিলেন আত্মগোপনে। রাজধানীতে বিরোধী জোটের আন্দোলন ব্যর্থ হওয়ায় খালেদা জিয়া ৮ নেতাকে দায়িত্ব দেন এবারের অবরোধ কর্মসূচি সফল করতে। এদের একজন ছিলেন আসম হান্নান শাহ। যিনি এখন গ্রেপ্তার হয়ে পুলিশ হেফাজতে রয়েছেন। তাকে রিমান্ডে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

তবে, গতকাল থেকে শুরু হওয়া অবরোধ কর্মসূচি সফলে রাজধানীর আনাচে-কানাচে মূলত জোটের অন্যতম শরিক জামায়াত-শিবিরের নেতাকর্মীরাই হরতাল আদলে মাঠে নেমেছিলেন। দলের যুগ্মমহাসচিব রহুল কবির রিজভীর দাবিÑ সারা দেশে স্বতঃস্ফূর্তভাবে অবরোধ পালন করা হচ্ছে। রাজধানীতে দলের নেতাকর্মীরা মাঠে না থাকলেও জনগণই স্বতঃস্ফূর্তভাবে অবরোধ পালন করছে। সরকার নেতাকর্মীদের ওপর নির্যাতন অব্যাহত রেখেছে। এছাড়া বরাবরের মতোই দলীয় কার্যালয়ের সামনে পুলিশ প্রশাসনের অবস্থান রয়েছে।

গত সোমবার সন্ধ্যায় প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) জাতীয় নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর তা প্রত্যাখ্যান করে ৪৮ ঘণ্টার অবরোধ কর্মসূচির ঘোষণা করা হয়। গুলশানে খালেদা জিয়ার কার্যালয়ে কর্মসূচি ঘোষণার পরক্ষণেই দলের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ওই স্থান ত্যাগ করেন। এ ঘটনার কিছুক্ষণ পর বারিধারা এলাকা থেকে গ্রেপ্তার হন আসম হান্নান শাহ। গোয়েন্দারা তাকে আটকের পর সরাসরি মিন্টো রোডের গোয়েন্দা সদর দপ্তরে নিয়ে যাওয়া হয়। হান্নান শাহ গ্রেপ্তার ঘটনা আতঙ্কগ্রস্ত করে তোলে দলের শীর্ষ নেতাদের। তারাও রাতেই আত্মগোপনে চলে যান বলে জানা গেছে। কার্যত গ্রেপ্তার আতঙ্ক এখন আর পিছু ছাড়ছে না তাদের। এ কারণে রাত পোহালেই শুরু হওয়া ৪৮ ঘণ্টার অবরোধ কর্মসূচিতে অনুপস্থিত ছিলেন জোট নেতৃবৃন্দ। বিক্ষিপ্ত ককটেলবাজি আর ঝটিকা পিকেটিংয়ের মধ্যেই সীমাবদ্ধ ছিল অবরোধের সফলতা।

এর আগে বিভিন্ন আলোচনা ও সমাবেশে বিএনপির শীর্ষ নেতা বারবারই সরকার হঠানোর কঠোর আন্দোলনের কথা বলে আসছিলেন। সর্বশেষ সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের সমাবেশ থেকে ‘তফসিল ঘোষণার দিন থেকেই দেশ অচল’ ঘোষণা দিয়েছিলেন মির্জা ফখরুল। অথচ কর্মসূচি ঘোষণার পর থেকেই তিনি আত্মগোপনে চলে যান। খালেদা জিয়ার কঠোর নির্দেশ থাকা সত্ত্বেও বেশিরভাগ নেতাকর্মীকেই রাজপথে দেখা যায়নি। অন্যদিকে বিএনপির অপর যুগ্মমহাসচিব আমানউল্লাহ আমানের নেতৃত্বে আমিন বাজার এলাকায় রাজপথ অবরোধের চেষ্টা করে নেতা-কর্মীরা। এ সময় কয়েকটি যানবাহনে ভাঙচুরও করা হয়। পরে পুলিশের বাধারমুখে বেশিক্ষণ টিকতে পারেনি অবরোধকারীরা। এছাড়া রাজধানীর কিছু স্থানে জামায়াত ও বিএনপির নেতাকর্মীরা বিচ্ছিন্নভাবে রাজপথ অবরোধ ও মিছিলের চেষ্টাও হয়ে ওঠেনি।

এদিকে বিগত হরতালে ঢাকার আন্দোলনে সফলতা দেখতে না পেয়ে, ক্ষুব্ধ বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া নেতাদের আন্দোলনের মাঠে থাকার কড়া হুঁশিয়ারি দিয়েছেন। ৪৮ ঘণ্টার অবরোধ কর্মসূচি সফল করতে রাজধানীতে সিনিয়র ৮ নেতাকে দায়িত্ব দিয়েছেন। এরমধ্যে কাফরুল, ক্যান্টনমেন্ট ও গুলশান এলাকার দায়িত্ব পান স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) আসম হান্নান শাহ, মতিঝিল, খিলগাঁও ও সবুজবাগ এলাকার দায়িত্বে থাকবেন মির্জা আব্বাস, মোহাম্মদপুর, আদাবর, দারুস সালাম এলাকায় দায়িত্ব পালন করবেন গয়েশ্বর চন্দ্র রায়। তেজগাঁও ও বনানীর দায়িত্ব পেয়েছেন নজরুল ইসলাম খান। ভাইস চেয়ারম্যান ও ঢাকা মহানগর বিএনপির আহবায়ক সাদেক হোসেন খোকার দায়িত্ব সূত্রাপুর, কোতোয়ালি, বংশাল, গেন্ডারিয়া ও ওয়ারী এলাকায়। আর যুগ্ম মহাসচিব আমান উল্লাহ আমান বাবুবাজার ব্রিজ, লালবাগ, নবাবগঞ্জ, হাজারীবাগ ও গাবতলী। বরকত উল্লাহ বুলু উত্তরা, উত্তর খান ও দক্ষিণ খান এবং সালাহউদ্দিন আহমদকে ডেমরা, শ্যামপুর, যাত্রাবাড়ী ও কদমতলীর এলাকায় অবরোধ সফল করার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। এছাড়া ওই সব এলাকার ছাত্রদল, যুবদল, স্বেচ্ছাসেবক দল এবং গত নির্বাচনে যারা বিএনপি থেকে মনোনয়ন পেয়েছিলেন তাদের নিয়ে আন্দোলন সমন্বয় করার নির্দেশ দিয়েছেন খালেদা জিয়া। চেয়ারপারসনের এই কঠোর নির্দেশনার পরও মাঠছাড়া ছিলেন এসব নেতারা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>

The Weeklydesh newspaper