পোশাক কারখানায় আগুন, দুর্ঘটনা নয়, পরিকল্পিত: সংসদে প্রধানমন্ত্রী

hh

পোশাক কারখানায় আগুন লাগার ঘটনাকে পরিকল্পিত বলে উল্লেখ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেছেন, ‘এটি দুর্ঘটনা নয়, পরিকল্পিত, এতে কোনো সন্দেহ নেই। এক নম্বরে পুলিশ, তারপর গার্মেন্টস। এরপর কিসের ওপর হামলা হবে, সেটা দেখতে হবে।’
আশুলিয়ার তাজরীন পোশাক কারখানায় এবং চট্টগ্রামের বহদ্দারহাটে উড়ালসড়কের গার্ডার পড়ে শতাধিক ব্যক্তির প্রাণহানির ঘটনায় গতকাল সোমবার সংসদে আনা শোক প্রস্তাবের ওপর আলোচনায় প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন। এর আগে ডেপুটি স্পিকার শওকত আলী শোক প্রস্তাবটি উত্থাপন করেন। তখন তোফায়েল আহমেদসহ বেশ কয়েকজন সাংসদ বিষয়টির ওপর আলোচনার দাবি করেন। আলোচনা শেষে শোক প্রস্তাবটি গৃহীত হয়।
আলোচনায় অংশ নিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আশুলিয়ার তাজরীন ফ্যাশনসে আগুন লাগার সঙ্গে সঙ্গে আগুন নেভানোর জন্য সেখানে ফায়ার ব্রিগেড ও পুলিশ পাঠানো হয়। সেনাবাহিনী ও র্যা বও পাঠানো হয়। আমি বিষয়টি শুরু থেকে পর্যবেক্ষণ করেছি। রাত দেড়টা থেকে আড়াইটার মধ্যে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। যারা ছাদে উঠেছিল, তাদের উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে। কী পরিমাণ লোক আটকা পড়েছিল, সেটাও রাতে জানা যায়নি। সকালে জানা যায়, মানুষ পুড়ে অঙ্গার হয়ে গেছে। চেহারা চেনা যায় না। জানি না, জীবন নিয়ে এ খেলা কবে শেষ হবে।’
প্রধানমন্ত্রী জানান, ১০৯টি লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এর মধ্যে ৬০টি লাশ শনাক্ত করে আত্মীয়স্বজনের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। ৫৭টি লাশের ডিএনএ সংগ্রহ করা হয়েছে। যেগুলো বেশি পুড়েছে, সেগুলোর দাঁত নেওয়া হয়েছে, চাইলে ডিএনএ পরীক্ষা করে লাশ দিতে পারবে। সে ব্যবস্থাও করা আছে।
শেখ হাসিনা বলেন, ‘রোববার ডেবোনেয়ার গার্মেন্টসে আগুন লাগানোর চেষ্টা করেছে চক্রান্তকারীরা। সুমি বেগম নামের এক নারী শ্রমিক কারখানায় আগুন দেয়। অন্য একজন তা দেখে ফেলায় সঙ্গে সঙ্গে আগুন নেভানো হয়। এ জন্য পুলিশ সুমি ও জাকির নামের দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে। আমি সিসিটিভিতে ধারণ করা ভিডিওতে দেখেছি, সুমি আগুন দিয়ে বেরিয়ে আসছে। সুমি স্বীকার করেছে, মাত্র ২০ হাজার টাকার বিনিময়ে সে এ কাজটি করেছে। এর পেছনে কারা জড়িত, তাদের খুঁজে বের করতে হবে। যখন বায়াররা আসে, কনট্রাক্ট সই করা হয়, তখনই এ ঘটনা ঘটানো হলো।’
প্রধানমন্ত্রী বলেন, পাট থেকে বৈদেশিক মুদ্রা আসত। তাই স্বাধীনতার পর পাটের গুদামে আগুন লাগত। এখন তৈরি পোশাক থেকে বৈদেশিক মুদ্রা আসে। তাই গার্মেন্টসে আগুন দেওয়া হচ্ছে। কিছু লোক আগুন লাগার পর দুর্ঘটনাকবলিতদের সাহায্য না করে পরিস্থিতি ঘোলাটে করার চেষ্টা করে।
আশুলিয়ার অগ্নিকাণ্ডে জামায়াতে ইসলামী ও ছাত্রশিবির জড়িত থাকতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেন তোফায়েল আহমেদ। তিনি বলেন, তৈরি পোশাক রপ্তানিতে চীন এক নম্বরে, বাংলাদেশ দুই নম্বরে। যখন বাংলাদেশ এক নম্বর হতে চলছে, তখনই এ ঘটনা ঘটিয়েছে। কারা এ ঘটনা ঘটিয়েছে, তার তদন্ত হওয়া দরকার।
রাশেদ খান মেনন বলেন, অতীতে যেসব ঘটনা ঘটেছে, তখন মালিকদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি বলেই এসব ঘটনা ঘটছে। এখন শুধু সমবেদনা জানালে হবে না, ক্ষতিগ্রস্তদের যথাযথ ক্ষতিপূরণ দিয়ে চিকিৎসার ব্যবস্থা করতে হবে। চট্টগ্রামে ফ্লাইওভারের গার্ডার আগেও পড়েছে। সেখানেও দায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি।
বহদ্দারহাটের ঘটনা প্রসঙ্গে সরকারি দলের মোশাররফ হোসেন বলেন, ‘বাইরে দেখা যায়, রেল দুর্ঘটনা ঘটলে মন্ত্রী পদত্যাগ করেন। আমাদের এখানে সেটা হয় না। তাই শুধু শোক প্রস্তাব আনলে হবে না, পদত্যাগ করে দৃষ্টান্ত স্থাপন করতে হবে।’
জাতীয় পার্টির রুহুল আমিন হাওলাদার বিচার বিভাগীয় তদন্তের দাবি জানান। আরও আলোচনা করেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী আফছারুল আমীন ও শাহরিয়ার আলম।
বিল পাস: গতকাল সংসদে বাংলাদেশ লিগ্যাল প্র্যাকটিশনারস অ্যান্ড বার কাউন্সিল (সংশোধন) বিল, ২০১২ পাস হয়েছে। আইনমন্ত্রী শফিক আহমেদ বিলটি সংসদে উত্থাপন করেন।
সংসদের অধিবেশন আজ বিকেল চারটা পর্যন্ত মুলতবি করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>

The Weeklydesh newspaper