অন্তর্বর্তী সরকারপ্রধান হতে আগ্রহী ব্যারিস্টার রফিক-উল হক

rafique

নির্বাচনকালে তত্ত্বাবধায়ক কিংবা অন্তর্বর্তী সরকারপ্রধানের দায়িত্ব পালনে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন বিশিষ্ট আইনজীবী ব্যারিস্টার রফিক-উল হক। তিনি বলেছেন, দেশের স্বার্থে সব ধরনের দায়দায়িত্ব নিয়ে কাজ করতে চাই। গতকাল দুপুরে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি মিলনায়তনে মুক্তচিন্তা ফোরাম আয়োজিত ‘মিট দ্য প্রেস’ অনুষ্ঠানে ব্যারিস্টার রফিক-উল হক এ আগ্রহ ব্যক্ত করেন। ‘আগামী নির্বাচনের সময় সরকারপ্রধানের দায়িত্ব গ্রহণের প্রস্তাব দেওয়া হলে আপনি কী করবেন’_ এ প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘এমন বিব্রতকর প্রশ্ন আমাকে করবেন না। যদি সে রকম অকেশন আসে, দেশের জন্য, দুই পার্টির জন্য আমি সব ধরনের রেসপনসিবিলিটি নিতে রাজি আছি।’

নির্বাচনকালীন সরকার নিয়ে দুই প্রধান দলের মুখোমুখি অবস্থান যেন সংঘাতের দিকে না যায়, সে জন্য সংলাপের গুরুত্ব তুলে ধরে রফিক-উল হক বলেন, কথা বলে দেখি। দুই নেত্রী দেশকে ভালোবাসেন না, গণতন্ত্রে বিশ্বাস করেন না_ এটা আমি বিশ্বাস করি না। তাদের মধ্যে একজনের সঙ্গে আজ দেখা হওয়ার কথা রয়েছে। অন্য জনের সঙ্গেও কথা বলা যেতে পারে। দেশের জনগণের স্বার্থে এ কাজটুকু করতে আমি আপ্রাণ চেষ্টা করব।

দুই নেত্রীকে একসঙ্গে বসাতে আপনি এরই মধ্যে কোনো উদ্যোগ নিয়েছেন এ কথা বলা যাবে কি না, জানতে চাইলে জবাবে তিনি বলেন, ‘উদ্যোগের উদ্যোগ নিয়েছি।’

তত্ত্বাবধায়ক সরকারব্যবস্থা নিয়ে চলমান বিতর্ক সম্পর্কে ব্যারিস্টার রফিক বলেন, বিএনপি এখনো নতুন তত্ত্বাবধায়ক সরকারের কোনো রূপরেখা দেয়নি। তারা তত্ত্বাবধায়ক সরকারের কথা বলছে, কিন্তু কাদের নিয়ে, কীভাবে তত্ত্বাবধায়ক সরকার হবে, তা তারা বলেনি। এ ক্ষেত্রে প্রধানমন্ত্রী বরং অনেকটা নেমে এসেছেন। অন্তর্বর্তীকালীন সরকারের কথা বলছেন। অন্তর্বর্তীকালীন সরকার মানে অন্যরা সঙ্গে থাকবেন। বিএনপি, জাতীয় পার্টিসহ সবাইকে নিয়ে যদি অন্তর্বর্তীকালীন সরকার গঠন করা হয়, তখন প্রশ্ন আসবে ওই সরকারের প্রধান কে হবেন? এটাই এখন মিলিয়ন ডলারের প্রশ্ন?

নির্বাচনকালীন সরকার নিয়ে সংঘাত এড়াতে সংলাপের গুরুত্ব তুলে ধরে তিনি বলেন, বর্তমান রাজনৈতিক সংকটের নিরসন করতে হবে। দুই নেত্রী সংলাপে বসবেন না, এটা আমি বিশ্বাস করি না।

মিডিয়ার উদ্দেশে তিনি বলেন, দুই নেত্রীকে কোনো জায়গায় ডেকে অনুরোধ করুন। বঙ্গবন্ধু কনভেনশন হলেও হতে পারে। দুই নেত্রীই দেশকে ভালোবাসেন। আমি আহ্বান করব, তারা দুজন বসে অথবা তাদের দলের যে দ্বিতীয় ব্যক্তি আছেন, তারা জনগণের মতামত নিয়ে একটি সিদ্ধান্ত নেবেন। সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে এটিএন বাংলা চেয়ারম্যানের করা মামলার সঙ্গে সম্পৃক্ত নন দাবি করে ব্যারিস্টার রফিক-উল হক বলেন, আমি কোনোভাবেই প্রত্যক্ষ, পরোক্ষ বা দূরবর্তীভাবে এসব মামলা পরিচালনার সঙ্গে সম্পৃক্ত নই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>

The Weeklydesh newspaper