আদালতে খালেদা জিয়া: হঠাৎ সরব বিএনপি

1

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট ও জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্টের দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া গতকাল রোববার আদালতে হাজিরা দেন। পুরনো ঢাকার বকশিবাজারের অস্থায়ী এজলাসে এদিন তিনি বেলা ১১টায় হাজির হন। এদিকে কেন্দ্র ঘোষিত কর্মসূচির অংশ হিসেবে গতকাল সারা দেশে পুলিশি বাধা, টিয়ারশেল নিক্ষেপ ও রাবার বুলেটের মধ্যেও বিক্ষোভ করেছে বিএনপি। দীর্ঘদিন পর রাজপথে সরব হতে দেখা গেছে দলের নেতাকর্মীদের।
গত ২৯ ডিসেম্বর মার্চ ফর ডেমোক্র্যাসি কর্মসূচির পর থেকে কোনো কর্মসূচিতে রাজপথে দাঁড়াতেই পারেনি দলটি। কিন্তু গতকাল দেশব্যাপী বিক্ষোভের কর্মসূচিতে রাজধানীসহ দেশের অধিকাংশ জেলায় নেতাকর্মীদের সরব উপস্থিতি ছিল চোখে পড়ার মতো। রাজধানীর প্রায় প্রতিটি থানায় পুলিশি বাধা উপেক্ষা করে মিছিল করেছে। একই কর্মসূচিতে সক্রিয় ছিল তৃণমূলের নেতাকর্মীরাও। গাজীপুরে মিছিল চলাকালে পুলিশের সঙ্গে ধাওয়া-পাল্টাধাওয়ার ঘটনাও ঘটেছে। পুলিশ টিয়ারশেল নিক্ষেপ ও গুলি করেছে। এ সময় গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র ও বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা অধ্যাপক এমএ মান্নানসহ প্রায় ২০ জন নেতাকর্মী আহত হন।
গতকাল দুটি মামলায় হাজিরা দেন খালেদা জিয়া। এদিন বেলা ১১টায় তিনি হাজির হন। মামলার বাদী দুদকের সহকারী পরিচালক হারুন অর রশিদ সাক্ষ্য দিতে উপস্থিত থাকলেও খালেদা জিয়ার পক্ষে সময়ের আবেদনের কারণে সাক্ষ্যগ্রহণ মুলতবি করে ২৪ নভেম্বর পরবর্তী তারিখ ধার্য করেন আদালত। ঢাকার ৩ নম্বর বিশেষ জজ আদালতের বিচারক বাসুদেব রায় শুনানি শেষে এ তারিখ ধার্য করেন।
এর আগে সাদা রঙের একটি পাজেরো গাড়িতে খালেদা জিয়া আদালতে উপস্থিত হন।
বেলা ১১টায় তিনি আদালতকক্ষে প্রবেশ করেন। খালেদা জিয়া আদালতে আসার আগেই আদালতে উপস্থিত হন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, মির্জা আব্বাস, আমানউল্লাহ আমান, শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী, আবদুুস সালাম, নাজিমউদ্দিন আলম প্রমুখ। এছাড়া আদালতের বাইরে হাজার হাজার নেতাকর্মী সকাল থেকে অবস্থান নেন।
অন্যদিকে খালেদা জিয়ার আইনজীবী হিসেবে আদালতে উপস্থিত খন্দকার মাহবুব হোসেন, ব্যারিস্টার মাহবুবউদ্দিন খোকন, এজে মোহাম্মাদ আলী, জয়নুল আবেদীন, সানাউল্লাহ মিয়া প্রমুখ সাক্ষ্যগ্রহণ মুলতবি চেয়ে শুনানি করেন। তারা বলেন, মামলা ২টিতে আপনার (বিচারক) বিচারিক ক্ষমতা চ্যালেঞ্জ করে করা হাইকোর্টে আদেশের বিরুদ্ধে আবেদন আপিল বিভাগে বিচারাধীন, যা রোববারই শুনানি হতে পরে। এছাড়া আপনার আদালতের ওপর অনাস্থা জ্ঞাপন করে আদালত পরিবর্তনের জন্য একটি আবেদনও হাইকোর্টে দাখিল করা হয়েছে, তাও শুনানির অপেক্ষায় আছে। তাই ওই আবেদনগুলোর নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত সাক্ষ্যগ্রহণ মুলতবি রাখা হোক। তারা বলেন, আপিল বিভাগে কোনো আবেদন বিচারাধীন থাকলে নিম্ন আদালতে ওই সংক্রান্ত মামলার কার্যক্রম মুলতবি রাখাই উচ্চ আদালতের সিদ্ধান্ত।
বিচারক এ সময় দুদকের আইনজীবীদের বক্তব্য শুনতে চাইলে পিপি মোশাররফ হোসেন কাজল বলেন, আজ (রোববার) সাক্ষ্যগ্রহণের জন্য দিন ধার্য আছে। আর আজই সাক্ষীর জন্য প্রথম তারিখ নয়। এর আগে অনেক তারিখ গেছে। বাদীর আংশিক সাক্ষ্য হয়ে আছে। বাদী আদালতে উপস্থিত আছেন। যেহেতু উচ্চ আদালতের কোনো স্থগিতাদেশ নেই, সাক্ষী আদালতে হাজির আছেন, তাই সাক্ষ্যগ্রহণ করা হোক।
এ সময় এজলাসে উপস্থিত খালেদা জিয়ার উদ্দেশে আদালত বলেন, আপনি আদালতে উপস্থিত থাকলে আদালতের শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বজায় থাকে। এছাড়া শুনানিকালে দুদকের আইনজীবী কাজল খালেদা জিয়ার উদ্দেশে বলেন, আপনার কাছ থেকে অনেক কিছু শেখার আছে। আমরা আশা করব, আপনি মামলার প্রতিটি ধার্য তারিখে আদালতে হাজির হবেন।
প্রায় পৌনে ১২টা পর্যন্ত শুনানির পর আদালত বলেন, আপিল বিভাগে এ মামলা ২টি নিয়ে শুনানি চলমান। আপিল বিভাগের ওই বিষয় আমলে নিয়ে আজকের মতো মামলার কার্যক্রম ২৪ নভেম্বর পর্যন্ত মুলতবি করছি।
এদিকে খালেদা জিয়ার আদালতে আসা উপলক্ষে আদালত অঙ্গনে ব্যাপক নিরাপত্তা গ্রহণ করা হয়। আদালতের বাইরে বিপুলসংখ্যক নেতাকর্মী উপস্থিত হন।
এর আগেও মামলা ২টিতে খালেদা জিয়া ২০০৯ সালের ৭ সেপ্টেম্বর ও ২০১২ সালের ২ ফেব্রুয়ারি, ওই বছর ১১ অক্টোবর এবং চলতি বছর ২১ মে ও ৩ সেপ্টেম্বর আদালতে হাজির হন।
খালেদা ছাড়া জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলার অপর ৫ আসামি হচ্ছেন বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমান, মাগুরার সাবেক এমপি কাজী সালিমুল হক কামাল ওরফে ইকোনো কামাল, ব্যবসায়ী শরফুদ্দিন আহমেদ, ড. কামাল উদ্দিন সিদ্দিকী ও মমিনুর রহমান। জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার আসামি কাজী সালিমুল হক কামাল ওরফে ইকোনো কামাল এবং শরফুদ্দিন আহমেদ জামিনে রয়েছেন।
এদিকে কর্মসূচি উপলক্ষে রাজধানীর শাহজাহানপুর থানা বিএনপি একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করে। মিছিলটি শান্তিবাগ পানির পা¤প থেকে শহীদবাগ মসজিদের সামনে দিয়ে গাজীর বস্তি হয়ে রেললাইনে গিয়ে শেষ হয়। মতিঝিল থানায় পীরজঙ্গি মাজার থেকে ইসলামী ব্যাংক হাসপাতাল পর্যন্ত মিছিল হয়। বাড্ডা থানা বিএনপির উদ্যোগে বাড্ডা বাজারে মিছিল হয়। ওই মিছিল থেকে স্থানীয় বিএনপি নেতা শাহজাহানকে আটক করে পুলিশ। পুরনো ঢাকার ওয়ারী থেকে শুরু করে বনগ্রাম রোড হয়ে রথখোলায় গিয়ে শেষ হয়। গে-ারিয়ায় সাদেক হোসেন খোকা মাঠ থেকে শুরু করে দয়াগঞ্জ বাজারে গিয়ে শেষ হয় গে-ারিয়া থানা বিএনপির মিছিল। শাহআলীতে চিড়িয়াখানার গেট থেকে তাবানী বেভারেজ কোম্পানির কারখানা পর্যন্ত মিছিল হয়। মিছিল থেকে পুলিশ দুলাল নামে একজনকে গ্রেপ্তার করে। কাওরানবাজারে মিছিল বের করে তেজগাঁও থানা বিএনপি। ওই মিছিল থেকে ৫ জনকে আটক করে পুলিশ। পুলিশের হামলায় বিএনপি নেতা ফজলুল হক, সাদ্দাম হোসেন ও হাবিব আহত হন। একইভাবে ধানম-ি থানায় ল্যাবএইড হাসপাতাল থেকে গ্রিনরোড হয়ে ধানম-ি ৮নং রোডে মিছিল বের করা হয়। মহাখালীর গাউছুল আজম মসজিদের সামনে থেকে একটি মিছিল মহাখালী ওয়ারলেস গেটে গিয়ে শেষ হয়। গুলশান ২নং গোলচত্বর হয়ে খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক কার্যালয়ের সামনে দিয়ে আমেরিকান অ্যাম্বাসির সামনে গিয়ে শেষ হয় মিছিলটি। উত্তরা পূর্ব, উত্তরা দক্ষিণ, উত্তরা পশ্চিম থানা, খিলক্ষেত, ভাসানটেক, কাফরুল, ক্যান্টনমেন্ট, ডেমরা, যাত্রবাড়ী, তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল, দক্ষিণখান, বিমানবন্দর, গুলশান, মুগদা, মা-া, বংশাল, শাহবাগ, রমনা, পল্লবী ও রূপনগর, খিলগাঁও, শ্যামপুর, সবুজবাগ, চকবাজার, কদমতলী, মিরপুর, মোহাম্মদপুর, কলাবাগান, নিউমার্কেট, দারুসসালাম, ভাটারা থানার বিভিন্ন সড়কে বিক্ষোভ মিছিল বের করে স্থানীয় বিএনপির নেতাকর্মীরা।
এদিকে সন্ধ্যায় নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক প্রেসব্রিফিংয়ে দলের যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী আহমেদ অভিযোগ করে বলেছেন, আওয়ামী লীগের শাখা অফিস হিসেবে কাজ করছে ঢাকা মেট্রো পলিটন পুলিশ (ডিএমপি)। তিনি বলেন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী এখন অবৈধ সরকারের লাঠিয়াল বাহিনী হিসেবে কাজ করছে। এ জন্যই বিরোধী দলের সভা-সমাবেশ দেখলেই বন্দুকের নল তাক করে থাকে। সরকারের প্রত্য মদদে তারা একের পর এক অন্যায় কাজ করে যাচ্ছে। রাজধানীসহ সারা দেশে বিএনপির বিােভে পুলিশ হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান রিজভী আহমেদ।
কেন্দ্র ঘোষিত বিক্ষিভ মিছিল সারা দেশে পালন করেছে বিএনপির নেতাকর্মীরা। খবর পাঠিয়েছেন প্রতিনিধিরাÑ
গাজীপুর : নগরীতে দুপুর সোয়া ১২টার দিকে বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। নেতৃত্বে ছিলেন গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র অধ্যাপক এমএ মান্নান। পুলিশ মিছিলে বাধা দিলে নেতাকর্মীরা পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়ায়। পুলিশ বেশ কয়েক রাউন্ড রাবার বুলেট ও টিয়ারশেল ছোড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে। সংঘর্ষে সিটি মেয়র অধ্যাপক এমএ মান্নান, শ্রমিক দল কার্যকরী সভাপতি সালাউদ্দিন সরকার ও পুলিশ কর্মকর্তাসহ অর্ধশতাধিক আহত হন। এর মধ্যে নারী সিটি কাউন্সিলরসহ কমপে ১০ জন গুলিবিদ্ধ রয়েছেন। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ৪ জনকে আটক করে।
রাজশাহী : দুপুর ১২টায় বিােভ মিছিল ও সমাবেশ করে মহানগর বিএনপি। নগরীর ভুবনমোহন পার্ক থেকে মিছিল বের হয়। নেতৃত্বে ছিলেন মহানগর সভাপতি মিজানুর রহমান মিনু। অন্যদিকে সকাল ৮টার দিকে নগরীর কোর্ট স্টেশন এলাকায় মহানগর জামায়াত বিােভ মিছিল ও সমাবেশ করে।
নারায়ণগঞ্জ : জেলা বিএনপি বিকাল সোয়া ৫টায় জেলা কার্যালয়ের সামনে সমাবেশ করে। সভাপতিত্ব করেন জেলা বিএনপির সভাপতি তৈমুর আলম খন্দকার। সমাবেশ শেষে একটি মিছিল নগরীর ২নং রেলগেট এলাকায় গেলে বিপুলসংখ্যক পুলিশ বাধা দেয়। এ সময় পুলিশের সঙ্গে বিএনপি নেতাকর্মীদের ধস্তাধস্তি হয়। পুলিশের বাধায় মিছিল না করে বিএনপি নেতাকর্মীরা জেলা বিএনপি কার্যালয়ের সামনে ফিরে এসে রাস্তাটির অর্ধেক দখল করে দাঁড়িয়ে থাকে। এ সময় তারা ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে দুটি ট্রাক ও একটি অটোরিকশা ভাঙচুর করে।
সিরাজগঞ্জ : জেলা বিএনপির বিােভ মিছিল পুলিশের বাধার মুখে প- হয়ে যায়। বিকাল ৫টার দিকে ইবি রোডের বিএনপি কার্যালয় থেকে একটি বিােভ মিছিল বের করতে চাইলে পুলিশ বাধা দেয়। বাধা উপো করে মিছিল বের করার চেষ্টা করলে প্রথমে পুলিশ টিয়ারশেল ও পরে রাবার বুলেট নিপে করে মিছিলকারীদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এতে ১২ নেতাকর্মী আহত হন।
বরিশাল :  পুলিশি বাধায় বিক্ষোভ মিছিল করতে পারেনি বিএনপি। বেলা সাড়ে ১১টায় নগরীর অশ্বিনী কুমার টাউন হল চত্বরে দলীয় কার্যালয়ের সামনে সমাবেশ শেষ করে নগর বিএনপি সভাপতি অ্যাডভোকেট মজিবর রহমান সরোয়ারের নেতৃত্বে বের হওয়া মিছিল সদর রোডে লাঠিচার্জ করে ছত্রভঙ্গ করে পুলিশ।
পটুয়াখালী : জেলা বিএনপির উদ্যোগে সকাল ১০টায় শহরের শেরেবাংলা সড়কের বটতলায় সমাবেশ ও পরে বিক্ষোভ মিছিল বের করে বিএনপি। বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে কাজীপাড়ার জেলা কার্যালয়ে গিয়ে শেষ হয়।
পিরোজপুর : জেলা বিএনপির কার্যালয় থেকে সকালে একটি মিছিল শুরু হয়ে শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে সোনালী ব্যাংকের সামনে সমাবেশে মিলিত হয়।
গাইবান্ধা : জেলা বিএনপির উদ্যোগে সকালে একটি বিােভ মিছিল শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদণি করে। পরে দলীয় কার্যালয় চত্বরে জেলা বিএনপির সভাপতি আনিসুজ্জামান খান বাবুর সভাপতিত্বে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>

The Weeklydesh newspaper