বিএনপি ‘প্রধান স্বাধীনতাবিরোধী’ দল: আশরাফ

1
খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে বিএনপিকে স্বাধীনতাবিরোধীদের ‘প্রধান’ দল হিসাবে আখ্যায়িত করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম।
বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষ্যে শুক্রবার সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আওয়ামী লীগের জনসভায় তিনি এ মন্তব্য করেন।

আশরাফ বলেন, “শুধু জামায়াতই স্বাধীনতাবিরোধী রাজনৈতিক দল নয়। খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে বিএনপি এখন প্রধান স্বাধীনতাবিরোধী দল।”

দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নিরঙ্কুশ বিজয়ের পর এটাই আওয়ামী লীগের প্রথম জনসভা। দলীয় সভানেত্রী শেখ হাসিনা ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও এ জনসভায় উপস্থিত রয়েছেন।

আশরাফ বলেন, “স্বাধীনতা বিরোধীরা ক্ষান্ত নয়, তারা নিঃশেষ হয়ে যায়নি। এদের ব্যাপারে আমাদের সর্তক থাকতে হবে।”

গণতন্ত্রের অগ্রযাত্রাকে ব্যাহত করতে বিএনপি নেতৃত্বাধীন জোট ষড়যন্ত্র করছে বলেও তিনি মন্তব্য করেন।

নির্বাচনে অংশ না নিয়ে খালেদা জিয়া ‘সব’ হারিয়েছেন মন্তব্য করে সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত বলছেন, আগামীতেও শেখ হাসিনার অধীনেই বিএনপিকে নির্বাচনে অংশ নিতে হবে।

‘এখনো শেখ হাসিনা খালেদা জিয়াকে ভোটে আসার আহ্বান জানাচ্ছেন’- উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের এই নেতা বলেন, “জামায়াত-অপরাজনীতি ত্যাগ করেন। নির্বাচন করতে হলে আবারো শেখ হাসিনার অধীনেই নির্বাচন করতে হবে।”

দলের উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য তোফায়েল আহমেদ বলেন, “যারা একবার পরাজিত হয়েছিল, তারা বারবার পরাজিত হয়। জামায়াতের সঙ্গে হাত মিলিয়ে ৫ জানুয়ারির নির্বাচন না করে আপনি (খালেদা জিয়া) আবারো পরাজিত হয়েছেন।”

খালেদা জিয়াকে উদ্দেশ করে তিনি বলেন, “আপনি কি অবরোধ দিয়ে অর্থনৈতিকভাবে বাংলাদেশকে পাকিস্তানের মতো অকার্যকর রাষ্ট্রে পরিণত করতে চান?”

যুদ্ধাপরাধীদের রায় কার্যকরের মধ্য দিয়ে জাতির অগ্রযাত্রাকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এগিয়ে নিয়ে যেতে বদ্ধপরিকর বলে জানান আমির হোসেন আমু।

আওয়ামী লীগ নেতা কামরুল ইসলাম স্বাধীনতাবিরোধীদের দেশ থেকে ‘নির্মূলের’ ঘোষণা দিয়ে বলেন, “জঙ্গিবাদী, সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে ভয়াবহ যুদ্ধ ঘোষণা করতে হবে। কারণ তারা দেশকে ধ্বংস করতে চাচ্ছে।”

“তাদের (স্বাধীনতাবিরোধী) প্রতিরোধ নয়, নির্মূল করে দেশে শান্তি প্রতিষ্ঠা করতে হবে।”

খালেদা জিয়ার ইঙ্গিতে দেশে সংখ্যালঘুদের ওপর হামলা করে সৌহার্দ-সম্প্রীতি নষ্ট করার চেষ্টা করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম।

ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোফাজ্জাল হোসেন চৌধুরী মায়া বলেন, “সংখ্যালঘুদের ওপর আঘাত করলে আমরাও পাল্টা আঘাত করব।”

সাম্প্রদায়িকতার ‘বিষবাষ্প’ কঠোর হাতে দমন করার ঘোষণা দেন দলের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ।

বেলা আড়াইটায় আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য সৈয়দা সাজেদা চৌধুরীর সভাপতিত্বে জনসভা শুরু হয়।

দলেল সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মতিয়া চৌধুরী, মোহাম্মদ নাসিম, আব্দুল লতিফ সিদ্দিকীসহ বিভিন্ন সহযোগী সংগঠনের নেতারাও সমাবেশে বক্তব্য দেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>

The Weeklydesh newspaper